আখাউড়া ( ব্রাক্ষনবাড়িয়া) প্রতিনিধি:

আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়। আমি চাই আম্মু-আব্বু মিলেমিশে থাকো। কখনও ঝগড়া করো না। ভাইবোনরে না মেরে আদর-স্নেহ করো। আমাকে মাফ করে দিও, ইতি অপু।

চিরকুটে এমন সব হৃদয় স্পন্দন কথা লিখে গলায় ফাঁস দিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেল গোলাম হোসেন অপু (১৫) নামে এক কিশোর। সে ছয়ঘড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্র ছিল। আখাউড়া উপজেলার মোগড়া ইউনিয়নের ছয়ঘড়িয়া গ্রামে বুধবার বিকালে এ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে।বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার দুপুরে আড়াইটায় ঘরের বুতির সাথে দড়ি পেচিয়ে গলায় ফাস দিয়ে অপু আত্মহত্যা করে। খবর পেয়ে বিকাল সাড়ে ৩টায় পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করেন। এসময় ঘর থেকে তার হাতের লেখা এক পৃষ্ঠার একটি চিরকুট উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ব্যাপারে আখাউড়া থানার এসআই দেলোয়ার হোসেন জানান, প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যার প্রমান মিলেছে। ময়নাতদন্তে তার লাশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বাদল আহাম্মদ খান/mk television

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*