আখাউড়া প্রতিনিধি:
ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার আখাউড়ায় ঈদের দিনে মোঃ জহির মিয়া (৪২) নামে ৪ সন্তানের জনকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছ থানা পুলিশ। নিহত জহির মিয়া উপজেলার দক্ষিন ইউপির বীরচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত দুলু মিয়ার ছেলে।

সোমবার ঈদের দিন সকাল ১১ টার সময় পুলিশ মৃতের নিজ বসতঘর থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মৃতের নিজ বসত ঘরে নাইলনের রশিতে হাঁটুভাঙা অবস্থায় ঝুলে আছে, প্রতিবেশীর কয়েক জন বলাবলি করতে শুনা যায় যে, এভাবে ফাঁসি কখনো দেখিনি। পরিবারের লোকজন প্রতিবেশীরা জানান, জহির মিয়ার স্ত্রী গত দুই মাস আগে পারিবারিক কলহের জেরে তার বিরুদ্ধে মামলা করে বাপের বাড়িতে চলে যায় সেই অভিমানে আত্মাহত্যা করে থাকতে পারে।

নিহত জহির মিয়ার ছোট ভাই মোঃ সাদেক মিয়া বলেন, আমার বড় ভাইয়ের সাথে কারো কোন শত্রুতা ছিল না গতকাল বিকালে ঈদের বাজার করে এনেছিলেন। রাতে কাউকে কিছু না বলে ঘুমিয়ে পড়েন। সকালে ৮ টার সময় তার মেয়ে দরজায় ডাকাতাকি করে সাড়া না পেয়ে আমরা গিয়ে দরজা ভেঙে দেখতে পাই ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় আছে। তিনি আরো বলেন, আমাদের ধারনা তিনি স্ত্রীর সাথে অভিমান করে আত্মাহত্যা করেছেন।

আখাউড়া থানার এসআই নিতাই বলেন, আমরা খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করি কিন্তু বিছানায় হাঁটুভাঙা অবস্থায় মরদেহ ঝুলে থাকায় বিষয়টা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিতে পারে তাই আমরা প্রথমে একটি ইউডি মামলা দিয়ে লাশ ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারন সম্পর্কে জানতে পারবো।

বাদল আহাম্মদ খান/হাবিব ইফতেখার/শাহিনুর/এস রহমান

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*