বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি:

বয়স্ক ভাতা বানিজ্য নিয়ে যশোরের শার্শার বাহাদুরপুরে চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের উপর অভিযোগ করছেন এলাকাবাসী। যশোরের বেনাপোলে বাহাদুরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজানের সহযোগিতায় তার অধীনস্থ ইউপি সদস্যদের নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের দেয়া বয়স্ক ভাতা নিয়ে বানিজ্য করছে তার সত্যতা মিলেছে।

জানা যায় বাহাদুরপুর চেয়ারম্যান মিজানের নির্দেশে ০২ নং ঘিবার ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইউনুস, ০৪ নং ওয়ার্ড ধান্যখোলা কাউন্সিলর হাসান, ০৭ নং বোয়ালিয়ার কাউন্সিলর ছাকের ও ০৮ নং ওয়ার্ড শাখারীপোতা কাউন্সিলর মিন্টুর সহযোগিতায় মোট ৭৭ জন কার্ডধারীর বয়স্ক ভাতার ৩০০০/= (তিন হাজার) টাকার চেক দেওয়ার আগে প্রত্যেকের কাছ থেকে নগদ ১২০০/= (বার শত) টাকা অগ্রিম নিয়েছে বলে জানা যায়। এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে গেলে বয়স্ক ভুক্তভোগীরা জানান, তাদের কাছে বয়স্ক ভাতার অগ্রণী ব্যাংকের চেক দেওয়ার আগে মিজান চেয়ারম্যান ও তার লোকজন আমাদের কাছ থেকে বার’শ টাকা নিয়ে তারপর চেক প্রদান করেন।

বিষয়টি সত্যতার জন্য ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে গেলে চেয়ারম্যান অফিসকক্ষে তালাবদ্ধ করে সঠকে পড়েন। অবশেষে তাকে পাওয়া গেল মুঠোফোনে। অভিযোগের ভিত্তিতে জানতে চাইলে চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান অন্যকথা বলেন।

মোঃ রাসেল ইসলাম/হাবিব ইফতেখার/শাহিনুর/এস রহমান

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*