রংপুর প্রতিনিধি:
ঢাকার বাইরে রংপুরের বিভিন্ন এলাকায় চড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ। রংপুর অঞ্চলে এই পর্যন্ত ডেঙ্গু জ্বরে ৩৬ জন রোগি আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছে ২৯ জন। আর গাইবান্ধায় ৩ জন ও নীলফামারীর সৈয়দপুর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ১ জন। চিকিৎসকরা বলছেন ভর্তি হওয়া রোগিরা সাধারন ডেঙ্গু রোগি, কেউ আশংকাজনক নয়। স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, এখনও এই রোগ মহামারি আকারে ছড়ায়নি, কেউ মারা যায়নি। সিটি কর্পোরেশন এই দুর্যোগ মোকাবিলায় ফগার মেশিন দিয়ে মশক নিধন এবং লিফলেট, মাইকিং ও জনসচেতনতার ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে।

গেল ৩ দিনে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হঠাৎ ডেঙ্গু রোগি ভতি হয়েছে ৩২জন। আসন সংখ্যার বেশি রোগি থাকা এই হাসপাতালে চিকিৎসা সমস্যা দেখা দিলেও পৃথক দ্রত চিকিৎসা ব্যবস্থা নেয়ায় ৩ জন রোগি সুস্থ হয়ে ফিরে গেছে। এখনও চিকিৎসাধীন আছে ২৯ জন। এদের ২জন স্থানীয় ও ২৭জন ঢাকা থেকে আসা। তারা সাধারন ডেঙ্গু রোগি হওয়ায় আশংকাজনক কেউ নেই এবং এ পর্যন্ত মৃত্যু ঘটেনি কারো বলে জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। রংপুর জেলার বাইরে ২ জেলায় আরও ৪জন রোগি ভর্তির কথা স্বীকার করে ব্যাপক সচেতনতা ও সতর্কতামুলক ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান স্বাস্থ বিভাগ কর্তৃপক্ষ। পরীক্ষা,নিরিক্ষা ও হাসপাতালের সেবা এবং পরিবেশ ও স্থান সংকুলান সমস্যার কথা বললেন রোগিরা।

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের গুপ্তপাড়া এলাকায় এক জন ডেঙ্গু রোগি হাসপাতালে ভর্তি হওয়ায় জাতীয় দুর্যোগ ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধে ব্যাপক কর্মসূচি নিয়েছে সিটি কর্পোরেশন। মাইকিং, স্কাউটদের মাধ্যমে লিফলেট বিতরন, নির্মানাধীন ভবন ও বহুতল বাসা বাড়ির ছাদ এবং এডিস মশার বিচরণ ও প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংশ করতে ঝোপঝাড় পরিস্কার, ফগার মেশিনের মাধ্যমে মশক নিধনের কর্মসূচি ছাড়াও কন্ট্রোল রুম চালু, মেডিকেল টিম গঠনের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে সিটি কর্পোরেশেন।

এস করিম/হাবিব ইফতেখার/শাহিনুর/এস রহমান

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*