জেদ্দা (সৌদি আরব) প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ সহ  বিশ্বের ১২০ দেশের ধর্ম প্রান মুসলমানের স্রোত এখন মক্কার দিকে। গেল বছরের তুলনায় এই বছরের হজ্ব ব্যবস্থাপনা ইমিগ্রেশন অনেক সুন্দর হলেও লাগেজ নিয়ে ভোগান্তি শেষ নেই। প্রতি বছরই হজ্ব যাত্রীদের ইমিগ্রেশনের জন্য দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হয়। ইমিগ্রেশন ঝামেলা শেষ করে গাড়িতে উঠতে এবং লাগেজ পেতে আরও অনেকটা সময় হজ্ব প্লাজায় অপেক্ষা করতে হয় হজযাত্রীদের তবে এইবার বাংলাদেশী হজযাত্রী যারা হয়রত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশনের কাজ সেরে নিয়েছেন সেই সব হাজীদের সৌদি সরকারের রুট টু মক্কার অধীনে সরাসরি জেদ্দা বিমান বন্দর থেকে মক্কায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি যারা জেদ্দায় ইমিগ্রেশন করছেন তাদেরও কম সময় পার করতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন হজ্ব কাউন কিন্তু লাগেজ পাওয়ার ঝামেলা আগের মতোই রয়ে গেছে বলে অভিযোগ বরং, কোন কোন ক্ষেত্রে এই ঝামেলা বাড়ার এবং দীর্ঘ সময় ভোগান্তির কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশী হজযাত্রীরা।

অনেক ক্ষেত্রে লাগেজ পেতে সাত আট দিন লেগে যাচ্ছে, ফলে ওমরাহ পালন করার পর কাপড় পরিবর্তন করতে কষ্ট হচ্ছে অনেকের আবার ঔষধ সেবন করতে না পেরে অসুস্থ হয়ে পড়ছে অনেকেই।

সৌদিআরবের রুট টু মক্কার কারণে বেশিরভাগ হাজি এই সুবিধা ফেলেও কিছু কিছু বেসরকারী এজেন্সির অব্যবস্থাপনার কারণ এই দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন হজ্ব কাউন্সিল মাসুদুর রহমান।
সৌদিআরবে এখন পর্যন্ত হজ্ব করতে বাংলাদেশ থেকে ৯৭,৩১২ জনের অধিক হজ্ব যাত্রী মক্কায় ও মদিনায় পৌছে। বার্ধক্য জনিত কারণে ১৮ জন হজযাত্রীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন হজ্ব সংশ্লিষ্টরা ।

মোহাম্মদ ফিরোজ/হাবিব ইফতেখার/শাহিনুর/এস রহমান

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*