সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা সদরের স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিম্মমানের সেবা প্রদান

36
0

গোয়াইনঘাট (সিলেট) প্রতিনিধি:

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা সদরের স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসকদের উপস্থিতি কম থাকলেও জনবল সংকট। নিম্মমানের সেবায় ভুগান্তি কমেছে রোগীদের। একি সঙ্গে নোংড়া পরিবেশ পানির সমস্যা ঔষধ না পাওয়ার অভিযোগও নেই রোগী ও স্বজনদের। ফলে প্রশংসিত হচ্ছে সরকারের স্বাস্থ্যসেবার মূল উদ্দেশ্য। এই অবস্থায় জনবল সংকটকে দায়ী করলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ উজ্জ্বল কান্তি দত্ত ।

প্রায় ৪ লাখ জনগোষ্ঠির স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ২০১০ সালের ১১ নবেম্বর ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নতি করা হয় সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স । স্থানীয় সংসদ সদস্য বর্তমান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি, ৫০ শয্যায় উন্নতি করণে স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের শয্যার সংখ্যা বাড়লেও বাড়েনি পর্যাপ্ত চিকিৎসকদের উপস্থিতি। চিকিৎসকদের কক্ষে ঝুলছে তালা, আর চিকিৎসক না থাকলে রোগীদেও নেই কোন অভিযোগ।  নিম্মমানের চিকিৎসা সেবা ও বাইরে থেকে ঔষধপত্র কেনার সচিত্র প্রতিবেদন সংগ্রহ করতে গিয়ে চোখে পরে ভিন্নচিত্র চিকিৎসকদের কক্ষে ঝুলছে তালা।

ইর্মাজেন্সীতেও নেই কোন চিকিৎসক সিনিয়র নার্সরাই দিচ্ছেন ব্যবস্থাপত্র। তবে এই বিষয়ে জনবল সংকটাপন্নকে দায়ী করলেন বহিঃবিভাগের এই কর্মচারী। তবে জনবল কম থাকায় মানসম্মত সেবা দিতে পারছেনা বলে জানান নার্স ও আয়া।  চিকিৎসকদের অনুপস্থিতির নানা অজুহাত দেখিয়ে স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে জনবল বাড়ালে সব সমস্যা নিরশন হবে বলে জানালেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ উজ্জ্বল কান্তি দত্ত।

এদিকে জনবল সংকট সহ নিয়মিত হাসপাতালের তদারকি করছেন সিলেটের ডেপুটি সিভিল সার্জন শামীম আহমদ, চিকিৎসক হাসপাতালে উপস্থিত না থাকলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়ার কথা জানান তিনি, তবে জৈন্তাপুর স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের মানসম্মত চিকিৎসাসেবা ধরে রাখতে জনবল নিয়োগের পাশা পাশি চিকিৎসকদের প্রাইভেট প্যাকটিস বন্ধে কার্যকারী পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি সংশ্লিষ্টদের।

সালমান এফ রহমান/হাবিব ইফতেখার/শাহিনুর/এস রহমান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here