ব্যুরো প্রধান (ইউরোপ):

প্রবাসীদের বলা হয় রেমিট্যান্স যোদ্ধা। সেই রেমিট্যান্স যোদ্ধারা খোদ নিজ দেশে হয়রানি ও প্রতারনার শিকার হচ্ছে। ইতালীর ভিসা পেতে ঘুষ বাবদ গুনতে হচ্ছে মোটা অংকের টাকা।

বাবা, মা, স্ত্রী, সন্তান, আত্মীয় স্বজন ছেড়ে সুদূর প্রবাসে থাকা প্রবাসীরা খোদ নিজ দেশ বাংলাদেশেই হয়রানি ও প্রতারনার শিকার হচ্ছেন। দীর্ঘ সময় ইতালীতে অবস্থান করা এ খেটে খাওয়া মানুষ গুলো তাদের স্ত্রী, সন্তান, বাবা ও মাকে ইতালীতে আনার জন্য আবেদনের, ১ থেকে ২ মাসের মধ্যে তাদের লুনাউস্তা হাতে পেয়ে যাচ্ছে। লুনাউস্তাসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে, বাংলাদেশে ইতালীয়ান দূতাবাসের নির্দিস্ট এজেন্ট ভি এফ এস এ জমা দিতে গেলে সেখানে নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে প্রবাসীদের। এমন কি টাকার বিনিময়ে দালালের মাধ্যমে কাগজ জমা দিতে হয়।

ভিসার জন্য লুনাউস্তা জমা দেবার পর নির্দিষ্ট সময়ে ভিসা না দিয়ে বছরের পর বছর ঘুরানো হচ্ছে দেশে থাকা প্রবাসীর পরিবারদের। ভিসা পেতে দূতাবাসে কর্মরত বাংলাদেশী, তাদের নির্দিষ্ট দালালের কাছে পৌছে দেয়া হচ্ছে ভিসা আবেদনকারির মোবাইল ফোন নাম্বার।

(ভিডিওতে বিস্তারিত দেখুন, লাইক/শেয়ার এবং সাবস্ক্রাইব করুন)

www.mktelevision.net/জাকির হোসেন সুমন/হাবিব ইফতেখার/শাহিনুর/মৌরী/রফিক

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*