নীলফামারীতে ছিটমহল বাসীর আনন্দের পাশাপাশি ক্ষোভ

100
0

স্টাফ রিপোর্টার সৈয়দপুর (নীলফামারী):
২০১৫ সালের ৩১ জুলাই মধ্যরাতে আনুষ্ঠানিকভাবে বিলুপ্ত হয় ভারত-বাংলাদেশের ছিটমহল। এরপর দুই বছরের মধ্যে দীর্ঘ ৬৮ বছরের বঞ্চনা আর অবরুদ্ধ জীবনের নিদারুণ কষ্টের অনেকখানি লাঘব হয়েছে নীলফামারীর ছিটমহল বাসিন্দাদের।

বদলে গেছে দুঃখভরা জীবনযাত্রা। মিলেছে বিদ্যুৎ, যোগাযোগ ব্যবস্থা ও সামাজিক নিরাপত্তার সুবিধা। ছেলে মেয়েরা করতে পারছে নিরাপদে লেখাপড়া। এতকিছু পেয়ে দারুণ খুশি ছিটমহলবাসিরা। তবে কিছু ক্ষোভও রয়েছে ছিটমহলবাসীদের। ছিটমহলবাসী হিসাবে বিভিন্ন সেক্টরে তাদের যে অগ্রাধিকার দেওয়ার কথা ছিলো তা এখনো কার্যকর হচ্ছে না।

ডিমলা উপজেলা নিবাহী অফিসার রেজাউল করিম জানান, ছিটমহল বাসীদের পর্যায়ক্রমে সকল সুবিধা প্রদানের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

ছিটমহল বাসীরা বলেন, আমরা খুশি তবে সরকারী প্রতিশ্র“তী গুলো সবক্ষেত্রে পালন হচ্ছে না। আমাদের ছেলে/মেয়েদের জন্য আলাদা ভাবে চাকরির কোনো কোটা নাই। ফলে আজও চাকরির সুযোগ-সুবিধা থেকে আমাদের ছেলে/মেয়েরা বঞ্চিত হচ্ছে। ৬৮ বছরের স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত ছিটমহলবাসী। এখনো স্ব্যস্থ্য  সেবা থেকে বঞ্চিত ছিটমহল গুলোতে কোনো কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপিত হয়নি।

(ভিডিওতে বিস্তারিত দেখুন, লাইক/শেয়ার এবং সাবস্ক্রাইব করুন)

mktelevision.net/আফরোজ আহমেদ সিদ্দিকী (টুইংকেল)/হাবিব ইফতেখার/শাহিনুর/রফিক/মৌরী

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here