সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি :

ব্যাপক অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে চলছে নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভার কসাইখানাটি। মাস্টার বোন ড্রেনের ওপর চলে জবাই কার্যক্রম। কাক-কুকুরের উৎপাত ও জবাইকৃত গরুর নাড়ি-ভূড়ি, রক্ত-মাংস আনা-নেয়ার ব্যাপারে অভিযোগ স্থানীয় হরিজনদের। এনিয়ে প্রতিনিধি টুইংকেলের পাঠানো তথ্য ও ভিডিও চিত্রে ডেস্কে আমি ইফতেখার বিস্তারিত জানাচ্ছেন নিপূণ সাহা।

সৈয়দপুর পৌরসভার একমাত্র কসাইখানাটি মাস্টারবোন ড্রেনের ওপর গড়ে তোলা হয়েছে। স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও চিকিৎসকের উপস্থিতিতে অনুমোদিত পশু জবাই করার কথা থাকলেও এখানে ঘটছে উল্টোটা। ছয় মাসেও একবার দেখা মেলেনা সংশ্লিষ্টদের। নজরদারী না থাকায় পূর্ন বয়স্ক পশুর পরিবর্তে বাছুর, রোগাক্রান্ত ও গর্ভবতী পশু জবাই হচ্ছে অহরহ। কাঙ্খিত সেবা না মিললেও পৌরসভা নির্ধারিত ফি’র অতিরিক্ত ফি দিতে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের।
আর্থিক অনিয়ম-অব্যবস্থাপনা, পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার অভাব, পানি ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশেই প্রতিদিন প্রায় ৪০টির অধিক পশু জবাই হচ্ছে এ কসাইখানায়। কুকুর-পাখির অবাধ বিচরণ বিষিয়ে তুলছে এর পরিবেশ। আর কসাইখানায় প্রবেশের পথটি স্থানীয় হরিজন পরিবারের বাড়ির ওপর গড়ে ওঠায় জবাইকৃত গরুর মাংস নাড়ি-ভুড়ি আনা-নেয়াকে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার সামিল বলে মনে করছে হরিজনরা। মাংস ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা চাচ্ছেন কসাইখানাটি পরিচ্ছন্ন ও আধুনিক পরিবেশে গড়ে তোলা হোক।

mktelevision.net/টুইংকেলে/হাবিব ইফতেখার/মৌরী/ইফতেখার/নিপূণ সাহা

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*