ময়ূরকণ্ঠী আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

পাকিস্তানের লাহোরে একটি গণউদ্যানে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৯ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়ে দেশটির বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন অন্তত ২৫০ জন। এদের মধ্যে বেশীর ভাগ নারী ও শিশু বলে জানিয়েছে পুলিশ ও সরকারি কর্মকর্তারা।

২৭ মার্চ রোববার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় গুলশান-ই-ইকবাল উদ্যানে গাড়ি পার্কিং এলাকায় ওই আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। ‍
যেখানে বিস্ফোরণ ঘটেছে তার থেকে সামান্য দূরে উদ্যানে বের হওয়ার পথ এবং মাত্র কয়েক ফুট দূরে শিশুদের দোলনা। প্রত্যক্ষদর্শীরা রয়টার্সকে বলেন, পুরো পার্কিং এলাকায় বিস্ফোরণের ধাক্কায় বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া মানুষের দেহাংশ ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। রোববার ইস্টার সানডে উপলক্ষ্যে সরকারি ছুটি থাকায় বিকালে অনেক মানুষ পরিবার নিয়ে পার্কে এসেছিলেন।

এদিকে এক বিবৃতিতে ঘটনার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানি জঙ্গিগোষ্ঠী তেহরিক-ই তালেবান জামাতুল আহরার।

পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইকবালের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ডন জানায়, ‘আত্মঘাতী’ বিস্ফোরণ স্থানটি একটি শিশু উদ্যান।

ঘটনার বিষয়ে ওই উদ্যানের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে দায়ী করেছেন দেশটির নাগরিকরা। আর প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, গুলশান-ই-ইকবাল উদ্যানের আশপাশে কোনো নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিলো না।

এ ঘটনায় পাঞ্জাব সরকার তিনদিনের শোক প্রস্তাব জানিয়েছে।

mktelevision.net/আল মামুন/ইফতেখার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*